| by রিতম শাঁখারী | No comments

আমার কবুতর, আমাকেই বলে বাকবাকুম (তুই ব্যাকডেটেড)

কম বেশি অনেক মানুষের সাথে চলার অভিজ্ঞতা আছে। একেক মানুষ একেক রকম। কালো বা সাদার মত কোনো রঙবর্ণ নিয়ে কিছু বলছি না। বলছি, সেই রঙবর্ণ এর পেছনে লুকিয়ে থাকা মানুষকে নিয়ে।

সময়ের সাথে সাথে তাল মিলিয়ে চলতে গিয়ে মাঝে মাঝে এগিয়ে গিয়েছি, মাঝে মাঝে পিছিয়ে গিয়েছি। যখন এগিয়ে গিয়েছি, আসে পাশে অনেক কে নিয়েই আগানোর চেষ্টা করেছি। হয়ত বিভিন্ন কারনে মাঝে মাঝে থমকে গিয়েছি। যখন থেমে গিয়েছি, তখন হয়ত যাদের নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছিলাম, তারা এগিয়ে গিয়েছে অনেক দূর। তাদের শুভকামনাও জানিয়েছি বহুবার।

একটা বিষয়ে খুব কষ্ট লাগে। সেটা কি জানেন? ভাই/বোন তোরা এগিয়ে গিয়েছিস, যা। অনেক দূরে যা। আমি তো বাধা দেই নি। বরং বিভিন্ন সমস্যার সমাধান আমি নিজ থেকেই করে দিয়েছি। তাহলে কেনো দিন শেষে তোদের আমার নামটা মনে থাকে না? এত সহজে মানুষের নাম ভুলে যাস তোরা? ভালো থাক তোরা।

মাঝে মাঝেতো অনেকে আবার বলেই বসে, “ভাই আপনার এইসব থিউরি এখন আর কাজে লাগে না, আপনে এসব থেকে অফ যান”। ভাই/বোনরে তোর আজকের অবস্থানটা আমার/আমার এই থিউরির উপর দিয়েই তৈরি হয়েছে। ভুলে গেলি? তা না হয় ভুলে যেতেই পারিস। কেউ তো আর জোড় করছে না।

 

mm
রিতম শাঁখারী

বয়সে তেমন একটা বড় নয়। ছোট খাটো একজন মানুষ বলতে পারেন। নিজের সম্পর্কে বড়াই করে বলার মত কিছু এখনো অর্জন করতে পারিনি। ব্যাক্তিগত কিছু বলতে চাইলে, বলতে হবে এখনো বিয়েসাধি করি নাই, তাই প্রেমিকার কথা জানতে চাইয়া লজ্জা দিবেন না। বাঙালী ঘরের একজন ছোটখাটো গরীব মানুষ, তাই বাংলার খাবারটাই বেশি পছন্দ করি। আর সামাজিক প্রেক্ষাপটে আমি পুরোটাই ভিন্য। সমাজের মানুষ যখন ঘুম থেকে ওঠে তখন আমি কম্পিউটার শাটডাউন করে ঘুমাতে যাই। রাতকে ভালোবাসি, সেকারণে রাতের সৌন্দর্যকে উপভোগ করার চেষ্টা করি।