| by ritom | No comments

আমাদের দার্জিলিং ভ্রমণ

আমাদের দার্জিলিং ভ্রমন ছিল অনেকটা কল্পনার মত। কখনো ভাবিনি বিদেশ ভ্রমণে যাবো। তাহলে প্রশ্ন আসতে পারে, পাসপোর্ট কেনো করেছি? আমার পাসপোর্ট করার প্রধান কারণই ছিল আন্তর্জাতিক লেনদেন সহজে করতে পারা। আর বিদেশ ভ্রমন আমার আসে পাসের মানুষের উৎসাহ।

এখানে প্রথমেই আমি আমাদের বলেছি কারণ, এই ভ্রমনটা আমার একার ছিল না। আমার সাথে আরো ৫ জন ছিল। আর বিশেষ করে সাব্বির তো ছিলই। পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এর মাধ্যমে আপনারাও ছিলেন।

এক টুকরো দার্জিলিং। আমাদের দার্জিলিং ভ্রমণ এর একটা অংশ।
এক টুকরো দার্জিলিং। আমাদের দার্জিলিং ভ্রমণ এর একটা অংশ।

আমার কাছে দার্জিলিং ভ্রমণটা এখন মনে হচ্ছে অনেকটা ঢাকা-চট্টগ্রাম ট্যুর দেয়ার মতই। মানুষকে বলতে শুনেছি, বিদেশ ভ্রমন অনেক কষ্ট। অনেক কিছু, এই সেই। কই? আমার কাছে তেমন কিছু মনে হয় নি।
পাসপোর্ট আছে। ভিসা করেছি। টিকেট কেটেছি। দুই দেশের ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস এর কাজ শেষ করে বর্ডার পার হয়ে চলে গেলাম বিদেশ। নিজেদের মত ইচ্ছে মত ঘোরাঘুরি করে, আবার ফিরেও এসেছি।

অনেকে বলে অনেক টাকার মামলা। অনেক টাকার বেপার সেপার। কমটাকায় চলা যায় না। কই? যদি বাংলাদেশি টাকার হিসাব করি, বাসা থেকে বের হয়ে বিদেশ ঘুরে আবার বাসা পর্যন্ত আসতে আমার খরছ হয়েছে মাত্র ১১৫০০ টাকা (কিছু কম বেশি আছে)।

আর কথা না বাড়াই। নিচে এক এক করে এই ভ্রমণের সবগুলো পর্বের লিঙ্ক দিয়ে দিচ্ছি। পড়ে দেখেন। আপনাদের ভালো লাগবেই সেটা বলব না। কারণ লেখাগুলো আমার মত করে লেখা।

 

এতক্ষণে নিশ্চই সবগুলো পর্ব পড়ে ফেলেছেন। কেমন লাগলো? ভালো লাগা মন্দ লাগা সব কিছুই নিচের মন্তব্য ঘরে লিখতে পারেন।

এই  ভ্রমণ পর্বের সকল ছবির কপিরাট © RITOM SHANKHARY PHOTOGRAPHY.

ফেসবুকে আমিঃ এখানে ক্লিক করুণ। 
ইউটিউবে আমিঃ এখানে ক্লিক করুণ

mm
ritom

Please enter the biographical info from the user profile screen.